সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৪:৪৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
নকলায় ময়মনসিংহ যুবসমাজ কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে ঈদ উপহার বিতরণ কবিতা :: ‘কোরবানির গরুর হাট’ নকলা প্রেসক্লাব’র উদ্যোগে সাংবাদিকদের ঈদ উপহার প্রদান নকলায় ১টি আগাম জামাতসহ ১০২ ময়দানে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হবে নকলায় কৃষকের মাঝে সার বীজ বিতরণ কর্মসূচি উদ্বোধন করলেন সংসদ উপনেতা মতিয়া চৌধুরী নকলার ১৭৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা পেলো সংসদ উপনেতা মতিয়া চৌধুরী’র ঈদ উপহার নকলায় গাছের সাথে শত্রুতা! সুষ্ঠু বিচার পাওয়া নিয়ে সংশয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার সংসদ উপনেতা মতিয়া চৌধুরী সংক্ষিপ্ত সফরে নকলায় পৌঁছেছেন নকলা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী ৩ প্রার্থীর শপথ গ্রহণ নকলায় ঈদ উপলক্ষে ২১৬৯ পরিবারের মাঝে ভিডব্লিউবি কর্মসূচির চাল বিতরণ

প্রাথমিক শিক্ষা ভাবনা

শরীফ আহম্মদ
  • প্রকাশের সময় | বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • ৯৭ বার পঠিত

–শরীফ আহম্মদ

আমি শিক্ষক থাকি সদা স্বতঃস্ফূর্ত
বিমূর্ত ধারণা গুলোকে করি মূর্ত।
শিক্ষার্থীদের করি শিখন ও বিদ্যালয়মূখী
নানা কৌশলে এ আঙিনা মাতিয়ে রাখি।

শিক্ষোপকরণ হয় যদি যথোপযুক্ত
শিখনের ভিত হবে পাকাপোক্ত।
শিখনের তিনটি ক্ষেত্র বড্ড উপকারী
তাই এসবে ধারণা নেয়া অতীব জরুরী।
জ্ঞানমূলক ক্ষেত্রে রয়েছে ছয়টি উপস্তর
তাতে ধারণা নিতে হবে বিস্তর।
আদর-সোহাগে করি পাঠদান
কেননা, শিক্ষকতা পেশা সু-মহান।
লক্ষ্য ১টি, উদ্দেশ্য ১৩ (নব ১০)টি, প্রান্তিক যোগ্যতা ২৯টিতে,
ঘটাব প্রয়োগ যথাযথ পদ্ধতিতে।

দক্ষতা যাচাই প্রতিযোগিতা
বাড়াবে শিশুর মানের গভীরতা।
শিখবে শিশু নাচে-গানে শিল্পকলায়
পোক্ত হবে কচি গঠন শারীরিক শিক্ষায়।
আদর্শ পাঠে শিশুরা হয় খুশি
শিখনেও বাড়ে মনযোগ বেশি।

প্রাথমিক শিক্ষাক্রম বিস্তরণ
গ্রহণ করিব প্রশিক্ষণ।
নতুন শিক্ষাক্রম বিস্তরণে
ধারাবাহিক মূল্যায়ণে
অর্জিত মানদন্ডে
শিখবে শিশু আনন্দে।

জ্ঞান, দক্ষতা, দৃষ্টিভঙ্গি ও মূল্যবোধ শিখতে
৬৯১টি মূল্যায়ণ নির্দেশকের সংখ্যায় তুলে হবে ধরতে।
অতীতে মুক্তপাঠে কোর্স করেছি গ্রহণ
এখন হাতে-কলমে বিস্তারিত নিব প্রশিক্ষণ।

নিয়মিত হবো হোমভিজিটের সাথী
অনুকূল পরিবেশ যদি পায় শিক্ষার্থী,
সাথে থাকে যদি আন্তরিক শিক্ষক ও এসএমসি
বাংলাদেশ হবে উন্নয়নের রোল মডেল;
এই আমাদের প্রতিশ্রুতি।

নিউজটি শেয়ার করুনঃ

এই জাতীয় আরো সংবাদ
©২০২০ সর্বস্তত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | সমকালীন বাংলা
Develop By : BDiTZone.com
themesba-lates1749691102
error: ভাই, খবর কপি না করে, নিজে লিখতে অভ্যাস করুন।