শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ০৮:৩৩ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
নকলায় বৈষম্যমূলক কোটা সংস্কার দাবিতে ও শিক্ষার্থীর ওপর বর্বর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন নকলায় উন্নয়ন সহায়তা কর্মসূচির টিউবওয়েল বিতরণ মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী শ্লোগানের প্রতিবাদে নকলায় মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন এবার শেরপুরকে ঘিরে তৈরি হচ্ছে ইত্যাদি অনুষ্ঠান : সকল কাজ প্রায় শেষ বিভাগীয় কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের বর্ষপূর্তি উপলক্ষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় নকলায় “মাদককে না বলুন” কর্মসূচি বাস্তবায়নে শপথ গ্রহণ নকলায় জঙ্গিবাদ ও মাদকাসক্তি প্রতিরোধে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান নকলায় শিশু ও নারী নির্যাতন বিরোধী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান নকলায় যুবদের হুইসেলব্লোয়ার হিসেবে অন্তর্ভূক্তিকরণ সভা নকলার ইউএনও শুদ্ধাচার পুরস্কার পাওয়ায় যুবফোরাম কর্তৃক সম্মাননা স্মারক প্রদান

আজ বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • প্রকাশের সময় | বুধবার, ৩ মে, ২০২৩
  • ১০৪ বার পঠিত

আজ ৩ মে, বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস। এবার দিবসটির প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘ভবিষ্যতে অধিকার আদায়ের স্বরূপ: মতপ্রকাশের স্বাধীনতা সব ধরনের মানবাধিকারের চালিকাশক্তি’।

সাংবাদিক তথা গণমাধ্যম কর্মীরা তার স্বাধীনতা ও মুক্ত গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠার মৌলিক নীতিমালা অনুসরণ, বিশ্বব্যাপী গণমাধ্যমের স্বাধীনতার মূল্যায়ন, স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ প্রতিহত করার শপথগ্রহণ এবং পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে ক্ষতিগ্রস্ত ও জীবনদানকারী সাংবাদিকদের স্মরণ ও তাদের স্মৃতির প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের লক্ষ্যে সারা বিশ্বের সঙ্গে বাংলাদেশেও নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিনটি পালিত হচ্ছে।

বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস পালন উপলক্ষে শেরপুরের নকলা উপজেলার সাংবাদিকরা পেশাগত অধিকার ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠা করতে বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়ে তা যথাযথ মর্যাদায় পালন করছে। কর্মসূচির অংশ হিসেবে বুধবার (৩ মে) সন্ধ্যায় শেরপুরের নকলা প্রেসক্লাব অফিসে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। তাছাড়া বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবসের আজ ৩০ বছর পূর্তি। এ উপলক্ষে নকলা প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

নকলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি মো. মোশারফ হোসাইন ও সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন সরকার বাবু জানান, দেশে গণমাধ্যমের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে বাড়লেও ভয়হীন স্বাধীন সাংবাদিকতা আশঙ্কাজনক ভাবে কমছে। তারা বলেন, যেকোন দেশের সরকার চাইলে রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ হিসেবে গণমাধ্যম যাতে বিনা বাধায় বা প্রতিবন্ধকতায় অর্পিত দায়িত্ব ও কর্তব্য যথাযথ ভাবে পালন করতে পারে, এমন ব্যবস্থা গ্রহন করতে পারে। এর জন্য উপযুক্ত পরিবেশ নিশ্চিত করা সরকারসহ সরকারের স্থানীয় প্রতিনিধিদের দায়িত্বের মধ্যে একটি বলে অনেকে মনে করছেন।

মতপ্রকাশের স্বাধীনতা সব ধরনের মানবাধিকার প্রতিষ্ঠার পূর্বশর্ত। সরকারকে সংবিধান অনুযায়ী তথা তাদের ক্ষমতানুযায়ী স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি হিসেবে পরিচিত মুক্ত, স্বাধীন ও বহুমুখী প্রচার মাধ্যমগুলোকে বরাবরের ন্যায় সার্বিক সহযোগিতার পাশাপাশি উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডে জড়িত রাখার জন্য আহ্বান জানান সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ।

তথ্য মতে, ১৯৯১ সালে ইউনেস্কোর ২৬তম সাধারণ অধিবেশনের সুপারিশ মোতাবেক ১৯৯৩ সালে জাতিসংঘের এক সাধারণ সভায় (৩ মে) তারিখটিকে ‘ওয়ার্ল্ড প্রেস ফ্রিডম ডে’ অথবা ‘বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস’ হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়। এই হিসেব মতে আজ বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবসের ৩০ বছর পূর্তি হলো।

মতপ্রকাশের স্বাধীনতাকে সব ধরনের মানবাধিকার রক্ষার অন্যতম উপাদান হিসেবে বিবেচনা করছে জাতিসংঘ। আন্তর্জাতিক সংস্থাটি মনে করে, টেকসই উন্নয়ন কর্মসূচি (এসডিজি) বাস্তবায়নে গণমাধ্যমের স্বাধীনতাকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। কারণ, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা সব ধরনের মানবাধিকার প্রতিষ্ঠার পূর্বশর্ত। সরকারকে সংবিধান অনুযায়ী তথা তাদের ক্ষমতানুযায়ী স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি হিসেবে পরিচিত মুক্ত, স্বাধীন এবং বহুমুখী প্রচার মাধ্যমকে সার্বিক সহযোগিতার পাশাপাশি পরামর্শ প্রদানের জন্য সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ আহ্বান জানান।

ইউনেস্কোর মতে অবাধ, মুক্তচিন্তা এবং মতপ্রকাশের অধিকার হচ্ছে মানবাধিকারের মূল কথা। ইউনেস্কোর ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্য থেকে জানা যায়, এবার মুক্ত গণমাধ্যম দিবস উপলক্ষে একাধিক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। বৈশ্বিক এ আয়োজনে সরাসরি ও ভার্চুয়ালি যুক্ত থাকছেন বিশ্বের মুক্ত গণমাধ্যম আন্দোলনের নেতাকর্মীরা। দিবসটি সামনে রেখে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা রক্ষা ও সাংবাদিকদের নিরাপত্তার দাবি জানিয়েছে আন্তর্জাতিক শতাধিক সংগঠন।

নিউজটি শেয়ার করুনঃ

এই জাতীয় আরো সংবাদ
©২০২০ সর্বস্তত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | সমকালীন বাংলা
Develop By : BDiTZone.com
themesba-lates1749691102
error: ভাই, খবর কপি না করে, নিজে লিখতে অভ্যাস করুন।