বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ১২:০৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
শেরপুরে ডিএসএ’র দাবা প্রতিযোগিতা উদ্বোধন ছাত্রলীগ থেকে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হলেন তরুণ সমাজসেবক কনক ঐতিহাসিক ভোট পেয়ে নকলা উপজেলা পরিষদের নতুন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হলেন লাকী নকলা উপজেলা পরিষদের নতুন চেয়ারম্যান মাহবুবুল আলম সোহাগ নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদে নির্বাচিত হলেন যাঁরা মেঘলা দিনে নকলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে সোহাগ, ভাইস চেয়ারম্যান পদে কনক ও লাকী নির্বাচিত নকলার ৭৯ কেন্দ্রে নির্বাচনি সরঞ্জাম পৌঁছেছে ব্যালট পেপার যাবে সকালে নকলায় নির্বাচনি প্রচারনা বন্ধ, নিয়ন্ত্রিত যানবাহন ২১ মে সাধারণ ছুটি ঘোষণা নকলাকে স্মার্ট উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলতে একগুচ্ছ পরিকল্পনা ঘোষণা দিলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী সোহাগ

নকলায় বিনা সরিষা-৯ ও বারি সরিষা-১৭’র মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়েছে

নকলা (শেরপুর) প্রতিনিধি:
  • প্রকাশের সময় | শনিবার, ১১ মার্চ, ২০২৩
  • ৪৫ বার পঠিত

শেরপুরের নকলায় ২০২২-২৩ অর্থ বছরে তেলজাতীয় ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি প্রকল্পের আওতায় বাস্তবায়িত বিনা সরিষা-৯ ও বারি সরিষা-১৭ প্রদর্শনীর উপর মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরাধীন নকলা উপজেলা কৃষি অফিসের আয়োজনে গনপদ্দী ইউনিয়নের বাড়ইকান্দি এলাকায় ও বানেশ্বরদী ইউনিয়নের ভূরদী এলাকায় বৃহস্পতিবারে আলাদা ভাবে দুটি মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা (ইউএও) কৃষিবিদ আব্দুল ওয়াদুদ-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মাঠ দিবস সমূহে প্রধান অতিথি হিসেবে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরাধীন শেরপুর খামার বাড়ির উপপরিচালক (ডিডি) ড. সুকল্প দাস এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তেলজাতীয় ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি প্রকল্পের জেলা মনিটরিং অফিসার (এমও) কৃষিবিদ খাইরুল আমীন, বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউ (বিনা) নালিতাবড়ী উপকেন্দ্রের বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা (এসও) কৃষিবিদ মো. ফরহাদ হোসেন। তবে বাড়ইকান্দি এলাকার মাঠ দিবসে আমন্ত্রীত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গনপদ্দী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামছুর রহমান আবুল প্রমুখ।

প্রধান অতিথি ড. সুকল্প দাস তাঁর বক্তব্যে তেলজাতীয় ফসলের আবাদ ও চাষীর সংখ্যা বৃদ্ধির লক্ষ্যে এই ফসলের সুফল সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেন এবং কৃষি কর্মকর্তাসহ কৃষকদেরকে দিকনির্দেশনা মূলক বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করেন।

প্রতিটি মাঠ দিবসে অতিথিবৃন্দ ছাড়াও কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা (এইও) কৃষিবিদ মো. শাহীন রানা, সংশ্লিষ্ট ব্লকে কর্মরত উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা (এসএএও), স্থানীয় শতাধিক কৃষক-কৃষাণী ও এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা (ইউএও) কৃষিবিদ আব্দুল ওয়াদুদ জানান, বিনা সরিষা-৯ প্রতি একরে ১৬ মন হারে ও বারি সরিষা-১৭ প্রতি একরে ১৭ মন হারে ফলন পাওয়া গেছে।

মাঠ দিসব শেষে শেরপুর খামার বাড়ির উপপরিচালক (ডিডি) ড. সুকল্প দাস সকল অতিথিবৃন্দকে সাথে নিয়ে উপজেলার বিভিন্ন মাঠ কার্যক্রম পরিদর্শন করেন।

নিউজটি শেয়ার করুনঃ

এই জাতীয় আরো সংবাদ
©২০২০ সর্বস্তত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | সমকালীন বাংলা
Develop By : BDiTZone.com
themesba-lates1749691102
error: ভাই, খবর কপি না করে, নিজে লিখতে অভ্যাস করুন।