বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০১:০৯ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
নকলায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ নকলা প্রেসক্লাবের সভাপতির সাথে সাংবাদিকদের ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় নকলায় কৃষকের মৃত্যু নিয়ে ধ্রুমজাল ! নকলায় ময়মনসিংহ যুবসমাজ কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে ঈদ উপহার বিতরণ কবিতা :: ‘কোরবানির গরুর হাট’ নকলা প্রেসক্লাব’র উদ্যোগে সাংবাদিকদের ঈদ উপহার প্রদান নকলায় ১টি আগাম জামাতসহ ১০২ ময়দানে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হবে নকলায় কৃষকের মাঝে সার বীজ বিতরণ কর্মসূচি উদ্বোধন করলেন সংসদ উপনেতা মতিয়া চৌধুরী নকলার ১৭৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা পেলো সংসদ উপনেতা মতিয়া চৌধুরী’র ঈদ উপহার নকলায় গাছের সাথে শত্রুতা! সুষ্ঠু বিচার পাওয়া নিয়ে সংশয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার

সরকারি ভাবে ১ ডিসেম্বরকে মুক্তিযোদ্ধা দিবস ঘোষণার দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • প্রকাশের সময় | বৃহস্পতিবার, ১ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ৫৫ বার পঠিত

যাদের ত্যাগ তীতিক্ষার বিনিময়ে আজ আমরা স্বাধীন বাংলার নাগরিকের পরিচয় বহন করি, জাতির সেইসকল শ্রেষ্ঠ সন্তানদের স্মরণে সরকারি ভাবে একটি দিবস পালনের দাবি উত্থাপন করা অত্যন্ত যৌক্তিক।

এই যৌক্তিক দাবির জায়গা থেকে সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম মুক্তিযুদ্ধ ৭১ সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন দীর্ঘদিন ধরে ১ ডিসেম্বর মুক্তিযোদ্ধা দিবস হিসেবে বেসরকারিভাবে পালন করে আসছে।

এবারও এর ব্যতিক্রম হয়নি। অবিলম্বে ১ ডিসেম্বরকে মুক্তিযোদ্ধা দিবস ঘোষণার দাবি জানিয়েছে সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম মুক্তিযুদ্ধ ৭১ সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন। বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম মুক্তিযুদ্ধ ৭১ কর্তৃক আয়োজিত সমাবেশে সংগঠনটির নেতারা ১ ডিসেম্বরকে সরকারি ভাবে মুক্তিযোদ্ধা দিবস ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন। দিবসটি উপলক্ষে ‘শিখা চিরন্তন’ ভাস্কর্যের বেদিতে ফুল দিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।

পরে সমাবেশে বক্তারা বলেন, ১ ডিসেম্বর মুক্তিযোদ্ধা দিবস হিসেবে সেক্টর কমান্ডারস ফোরামসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন দীর্ঘদিন ধরে বেসরকারিভাবে পালন করে আসছে। মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি ২০২১ সালে দিনটি স্বীকৃতির ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে জোর সুপারিশ করলেও আজ পর্যন্ত দিবসটির সরকারি স্বীকৃতি দেওয়া হয়নি। এখনও দিনটির সরকারি স্বীকৃতি না পাওয়ায় দুঃখ প্রকাশ করেন তাঁরা।

সমাবেশে সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম মুক্তিযুদ্ধ ৭১ এর কার্যনির্বাহী সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহা. নুরুল আলম, মহাসচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা হারুন হাবীব, সহসভাপতি অধ্যাপক ডা. আমজাদ হোসেন, আবুল কালাম আজাদ পাটোয়ারী, বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোহাম্মদ আসালত ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মির্জা মুজিবুর রহমানসহ অনেকে তাদের বক্তব্যে অবিলম্বে ১ ডিসেম্বরকে মুক্তিযোদ্ধা দিবস ঘোষণার দাবি জানান। তাদের এমন যৌক্তিক দাবির সাথে ঐকমত্য পোষণ করেছেন স্বাধীনতার পক্ষের বিভিন্ন পেশাশ্রেণীর জনগন।

এছাড়া দিবসটি উপলক্ষে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ), মুক্তিযোদ্ধা দিবস উদযাপন জাতীয় কমিটি, মুক্তিযোদ্ধা সংগ্রাম পরিষদ, মুক্তিযোদ্ধা ঐক্য জোটসহ বিভিন্ন সংগঠন ‘শিখা চিরন্তন’ ভাস্কর্যে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

সমাবেশের শেষ পর্যায়ে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি শাজাহান খান উপস্থিত সবাইকে শপথবাক্য পাঠ করান। এর আগে বক্তব্য রাখেন জাসদ সভাপতি ও সংসদ সদস্য হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেন, ‘এদিন আমরা ছুটি চাই না; কিন্তু মুক্তিযোদ্ধা দিবসের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি চাই।’ ঝুলিয়ে রাখা এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন অবিলম্বে জারি করার দাবিও জানান তিনি।

অন্যদিকে ঢাকা মহানগর পশ্চিম জাসদের সভাপতি মো. নরুন্নবীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, জাসদ সহসভাপতি মীর হোসাইন আখতার, শ্রমিক জোটের সভাপতি সাইফুজ্জামান বাদশা, জাসদের যুগ্ম সম্পাদক মীর্জা আনোয়ার, মহানগর পশ্চিম জাসদের সম্পাদক মফিজুর রহমান বাবুল প্রমুখ। এ ছাড়া ১ ডিসেম্বর সারাদেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায়  বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে মুক্তিযোদ্ধা দিবস পালন করেছে স্বাধীনতার পক্ষের বিভিন্ন সংগঠন।

নিউজটি শেয়ার করুনঃ

এই জাতীয় আরো সংবাদ
©২০২০ সর্বস্তত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | সমকালীন বাংলা
Develop By : BDiTZone.com
themesba-lates1749691102
error: ভাই, খবর কপি না করে, নিজে লিখতে অভ্যাস করুন।