সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৪:৪২ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
নকলায় ময়মনসিংহ যুবসমাজ কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে ঈদ উপহার বিতরণ কবিতা :: ‘কোরবানির গরুর হাট’ নকলা প্রেসক্লাব’র উদ্যোগে সাংবাদিকদের ঈদ উপহার প্রদান নকলায় ১টি আগাম জামাতসহ ১০২ ময়দানে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হবে নকলায় কৃষকের মাঝে সার বীজ বিতরণ কর্মসূচি উদ্বোধন করলেন সংসদ উপনেতা মতিয়া চৌধুরী নকলার ১৭৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা পেলো সংসদ উপনেতা মতিয়া চৌধুরী’র ঈদ উপহার নকলায় গাছের সাথে শত্রুতা! সুষ্ঠু বিচার পাওয়া নিয়ে সংশয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার সংসদ উপনেতা মতিয়া চৌধুরী সংক্ষিপ্ত সফরে নকলায় পৌঁছেছেন নকলা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী ৩ প্রার্থীর শপথ গ্রহণ নকলায় ঈদ উপলক্ষে ২১৬৯ পরিবারের মাঝে ভিডব্লিউবি কর্মসূচির চাল বিতরণ

শেখ হাসিনার হাতে ক্ষমতা থাকলে দেশ পথ হারাবেনা : মতিয়া চৌধুরী

নকলা (শেরপুর) প্রতিনিধি:
  • প্রকাশের সময় | বুধবার, ১৬ নভেম্বর, ২০২২
  • ২০০ বার পঠিত

বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে ক্ষমতা থাকলে বাংলাদেশ কখনো পথ হারাবেনা। আওয়ামী লীগ সরকারের হাতে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব থাকলে বাংলাদেশের সুনাম বিশ্বদরবারে ছড়িয়ে পড়ে। শেরপুরের নকলা উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য তিনবারের সবেক সফল কৃষিমন্ত্রী, কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বাংলার অগ্নিকন্যা হিসেবে খ্যাত বেগম মতিয়া চৌধুরী এমপি একথা বলেন।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ পরিচালিত হওয়ায় আজ আমরা বিভিন্ন দিকে বিশ্বে রোল মডেলে পরিণত হয়েছি। বিশেষ করে শিক্ষা খাতে আমাদের অর্জন বিশ্বকে তাক লাকিয়ে দিয়েছে। জ্ঞানভিত্তিক দেশ গড়ে তোলার জন্য সাহসের খেঁয়া পাড়ি দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের সকল মানুষের সন্তানদের হাতে শিক্ষাবর্ষের প্রথমদিন পহেলা জানুয়ারী দেশের প্রাথমিক স্তর থেকে শুরু করে মাধ্যমিক স্তরের সকল সোনামণিদের হাতে বিনামূল্যে নতুন বই তুলে দেওয়ার রেকর্ড আওয়ামী লীগ সরকারেরই রয়েছে। বিশ্বের অন্য কোন দেশ এই রেকর্ড গড়তে পারেনি। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ বিশ্বে অন্যতম রোল মডেল।

মতিয়া চৌধুরী আরো বলেন, শেখ হাসিনা শিক্ষাসহ দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য আবাসস্থল ও তাদের খাবার নিশ্চিত করার পাশাপাশি বস্ত্র, চিকিৎসা ও নারীর ক্ষমতায়নের জন্য নির্ঘুম রাত কাটান। তাই দেশ ও জনগনের কল্যানের জন্য শেখ হাসিনার সরকার বার বার দরকার। শেখ হাসিনার হাতে থাকলে দেশ, পথ হারাবেনা বাংলাদেশ; শ্লোগানের আদলে এমন মন্তব্যও তিনি বলেন। তিনি বলেন, এমন একদিন আসবে, যেদিন আশ্রয়ণ প্রকল্পের সরকারি ঘর বরাদ্দ দেওয়ার মতো লোক এদেশে খোঁজে পাওয়া যাবেনা।

১০ ডিসেম্বর সম্পর্কে বিএনপি যা বলছে, সেটা মুখের কথার ফুলঝুরি মাত্র। উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের প্রথম অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, অনেক সময় বিএনপি দিক-বেদিক হারিয়ে অনেক কিছুই বলে, আর তাদের বলার ফলে জনগনের কি উন্নয়ন হয় বা হয়েছে তা জনগন এখন বুঝেগেছে। অতএব এসব নিয়ে ভাবনার সময় জনগনের নেই। জনগন চায় নিজেদের উন্নয়ন ও সার্বিক নিরাপত্তা; যা আওয়ামী লীগ সরকার দিতে সমর্থ হয়েছে। তাই আগামীতেও আওয়ামী লীগ সরকারকে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব দিবেন জনগন। এমনটাই আশাব্যক্ত করেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী।

মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) দিনব্যাপী দুইটি অধিবেশনের মাধ্যমে আলাদা দুটি স্থানে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। দ্বিতীয় অধিবেশন শেষে রাত সাড়ে ৭টার দিকে সভাপতি হিসেবে আম্বিয়া খাতুন ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল ইসলাম জিন্নাহ-এর নাম ঘোষণা করা হয়।

প্রথম অধিবেশনের আলোচনা সভাটি পৌরসভার পূর্ব জালালপুর এলাকাস্থ গোলাম হাফিজ সোহেল-এর রাইচ মিল মাঠে এবং দ্বিতীয় অধিবেশনটি জালালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়।

সম্মেলনটি উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ শেরপুর জেলা শাখার সভাপতি ও জাতীয় সংসদের সরকার দলীয় হুইপ বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিউর রহমান আতিক এমপি। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য তিনবারের সাবেক সফল কৃষিমন্ত্রী ও কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বাংলার অগ্নিকন্যা হিসেবে খ্যাত বেগম মতিয়া চৌধুরী এমপি এবং প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট চন্দন কুমার পাল পিপি।

উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আম্বিয়া খাতুনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল ইসলাম জিন্নাহর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- ময়মনসিংহ বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল এমপি ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য রেমন্ড আরেং ও মারুফা আক্তার পপি।

সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনের শেষে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আম্বিয়া খাতুনকে সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল ইসলাম জিন্নাহর নাম ঘোষণা করা হয়।

অতিথিবৃন্দ, জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, স্থানীয় সকল কর্মী-সমর্থকদের উপস্থিতিতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করেন ময়মনসিংহ বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল।

উল্লেখ্য, বিগত ২০১৫ সালের ৪ এপ্রিল, শনিবার জমকালো এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নকলা উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এতে বীর মুক্তিযোদ্ধা মুস্তাফিজুর রহমানকে সভাপতি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. শফিকুল ইসলাম জিন্নাহকে সাধারণ সম্পাদক করে ৬৭ সদস্য বিশিষ্ট উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি করা হয়েছিল। এরও আগে ১৯৯৬ সালের ২৪ জুন সম্মেলনের মাধ্যমে নকলা উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করা হয়েছিলো।

নিউজটি শেয়ার করুনঃ

এই জাতীয় আরো সংবাদ
©২০২০ সর্বস্তত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | সমকালীন বাংলা
Develop By : BDiTZone.com
themesba-lates1749691102
error: ভাই, খবর কপি না করে, নিজে লিখতে অভ্যাস করুন।