বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ১১:৩৫ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
শেরপুরে ডিএসএ’র দাবা প্রতিযোগিতা উদ্বোধন ছাত্রলীগ থেকে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হলেন তরুণ সমাজসেবক কনক ঐতিহাসিক ভোট পেয়ে নকলা উপজেলা পরিষদের নতুন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হলেন লাকী নকলা উপজেলা পরিষদের নতুন চেয়ারম্যান মাহবুবুল আলম সোহাগ নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদে নির্বাচিত হলেন যাঁরা মেঘলা দিনে নকলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে সোহাগ, ভাইস চেয়ারম্যান পদে কনক ও লাকী নির্বাচিত নকলার ৭৯ কেন্দ্রে নির্বাচনি সরঞ্জাম পৌঁছেছে ব্যালট পেপার যাবে সকালে নকলায় নির্বাচনি প্রচারনা বন্ধ, নিয়ন্ত্রিত যানবাহন ২১ মে সাধারণ ছুটি ঘোষণা নকলাকে স্মার্ট উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলতে একগুচ্ছ পরিকল্পনা ঘোষণা দিলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী সোহাগ

নকলায় পাঠশালা উদ্বোধন করলেন অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকী

এম.এম হোসাইন:
  • প্রকাশের সময় | শুক্রবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৪৬১ বার পঠিত

শেরপুর জেলার নকলা উপজেলায় “মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশকে বুকে ধারন করে আমাদের সন্তানেরা হয়ে উঠুক বিশ্বনাগরিক” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে গুণগত মানসম্পন্ন ইংরেজি মাধ্যমে দেশীয় ও আধুনিক শিক্ষার প্রসারের লক্ষ্যে “পাঠশালা” নামক একটি বিদ্যালয়ের উদ্বোধন করা হয়েছে।

শুক্রবার (১০ ডিসেম্বর) বিকেলে পৌর শহরের প্রাণকেন্দ্র গ্রীনরোডে স্থাপিত “পাঠশালা” নামক এ বিদ্যালয়ের ভার্চুয়াল মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য, দেশ বরেণ্য শিক্ষাবিদ, বিশিষ্ট কলামিস্ট ও সাংবাদিক, রাজনৈতিক বিশ্লেষক, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস)-এর চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকী।

ইউরোপীয়ান ষ্ট্যান্ডার্ড স্কুল এবং  স্কালাষ্টিকা”র প্রাক্তন সিনিয়র ইংরেজি শিক্ষক, পাঠশালা বিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ মুহাম্মদ তৌহিদুল আলম রাসেলের সভাপতিত্বে ও ফাতেমাতুজ জহুরা রাত্রির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী ও সুধী সমাবেশ অনুষ্ঠানে ভার্চুয়াল মাধ্যমে বক্তব্য রাখেন হল্যান্ডের আমস্টারডাম সেন্ট্রাল হাসপাতালের অবসরপ্রাপ্ত পুষ্টিবিদ ও প্রধান পাচক জ্যাক হিনেইন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আম্বিয়া খাতুন, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল ইসলাম জিন্নাহ, যুগ্ম সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ মো. বোরহান উদ্দিন, যুগ্ম সম্পাদক ও নকলা পৌরসভার মেয়র হাফিজুর রহমান লিটন।

এছাড়া আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য সামিউল হক মুক্তা, বঙ্গবন্ধু শিক্ষা-গবেষণা পরিষদ নকলা উপজেলা শাখার সভাপতি ও নকলা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের অসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মজিবুর রহমান, সরকারি হাজী জালমামুদ কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. আলতাব আলী, মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি বিদ্যা নিকেতনের অবসরপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক বীর মুক্তিযোদ্ধা গিয়াস উদ্দিন, ধুকুড়িয়া এ-জেড টেকনিকেল এন্ড বি.এম কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ রেজাউল আলম, নকলা মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রেবেকা সুলতানা, মেহেদী ডাঙ্গা খেলাঘর আসরের সভাপতি ও বানেশ্বরদী উত্তর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজহারুল ইসলাম ফিরোজ, উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক খলিলুর রহমান, যুবলীগের আহবায়ক রফিকুল ইসলাম সুহেল, নকলা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন সরকার বাবু প্রমুখ।

এসময় নকলা প্রেস ক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলে রাব্বী রাজন ও নূর হোসেন, প্রচার সম্পাদক নাহিদুল ইসলাম রিজন, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল-আমিন, তথ্য-প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আসাদুজ্জামান সৌরভসহ উপজেলা, পৌরসভা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, উপজেলায় কর্মরত বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের সাংবাদিকগন, এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকগন উপস্থিত ছিলেন।

অধ্যক্ষ মুহাম্মদ তৌহিদুল আলম রাসেল বলেন, আমি দীর্ঘদিন রাজধানী ঢাকা শহরে ইংরেজি মাধ্যমে পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের মাঝে আমার এই ইংরেজি মাধ্যমে দেশীয় শিক্ষার প্রসার ঘটিয়েছি। তবে প্রতিটি মানুষের নিজের জন্মভূমির জন্য কিছু করার দরকার, এমন দায়িত্ববোধ থেকেই নিজ জন্মভূমি নকলাতে এ শিক্ষার প্রসার ঘটাতে তিনি রাজধানী ঢাকা শহর ছেড়ে উপজেলা শহরে এসেছেন বলে তিনি জানান। বিদ্যালয়টির সুমান ধরে রাখতে ও উত্তরোত্তর সুমান বৃদ্ধি করতে নিজের অবস্থান থেকে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাবেন; তবে এর এজন্য সকলের কাছে পরামর্শ ও শিক্ষার্থী ভর্তি করানোসহ সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

ইংরেজি মাধ্যমে দেশীয় শিক্ষার প্রসারে পাঠশালা বিদ্যাপিঠটি নকলা উপজেলায় প্রথম ও একমাত্র প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হলো। এর ফলে উপজেলার শিক্ষার্থীদের গুণগত মানসম্পন্ন ইংরেজি মাধ্যমে দেশীয় ও আধুনিক শিক্ষা নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। আগামী বছর (২০২২) থেকে উপজেলার কোন অভিভাবককে তাদের সন্তানদের নিয়ে আর রাজধানী, বিভাগ ও জেলাতে দৌঁড়াতে হবে না বলে মনে করছেন এলাকার সুশীলজন ও শিক্ষানুরাগীমহল।

নিউজটি শেয়ার করুনঃ

এই জাতীয় আরো সংবাদ
©২০২০ সর্বস্তত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | সমকালীন বাংলা
Develop By : BDiTZone.com
themesba-lates1749691102
error: ভাই, খবর কপি না করে, নিজে লিখতে অভ্যাস করুন।