বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৩:১৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
শেরপুরে ডিএসএ’র দাবা প্রতিযোগিতা উদ্বোধন ছাত্রলীগ থেকে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হলেন তরুণ সমাজসেবক কনক ঐতিহাসিক ভোট পেয়ে নকলা উপজেলা পরিষদের নতুন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হলেন লাকী নকলা উপজেলা পরিষদের নতুন চেয়ারম্যান মাহবুবুল আলম সোহাগ নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদে নির্বাচিত হলেন যাঁরা মেঘলা দিনে নকলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে সোহাগ, ভাইস চেয়ারম্যান পদে কনক ও লাকী নির্বাচিত নকলার ৭৯ কেন্দ্রে নির্বাচনি সরঞ্জাম পৌঁছেছে ব্যালট পেপার যাবে সকালে নকলায় নির্বাচনি প্রচারনা বন্ধ, নিয়ন্ত্রিত যানবাহন ২১ মে সাধারণ ছুটি ঘোষণা নকলাকে স্মার্ট উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলতে একগুচ্ছ পরিকল্পনা ঘোষণা দিলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী সোহাগ

মতিয়া চৌধুরীর সাথে নকলার নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যানদের সৌজন্য সাক্ষাৎ

নিজস্ব প্রতিনিধি:
  • প্রকাশের সময় | বুধবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৩৭৩ বার পঠিত

তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে শেরপুরের নকলা উপজেলার নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যানগনের মধ্যে অধিকাংশরাই শেরপুর-২ (নকলা-নালিতাবাড়ী) আসনের এমপি, কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, সাবেক কৃষি মন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী-এঁর সাথে সৌজন্য সাক্ষাতে ফুলেল শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন।

এর অংশ হিসেবে বুধবার (৮ ডিসেম্বর) উপজেলার ৫নং বানেশ্বরদী ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. মাজহারুল আনোয়ার (মহব্বত) কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, সাবেক কৃষি মন্ত্রী, নকলা ও নালিতাবাড়ী আওয়ামী লীগের অভিভাবক বেগম মতিয়া চৌধুরী এম.পি’র রাজধানী ঢাকার সরকারি বাসভবন রমনা এপার্টমেন্ট কমপ্লেক্সে গিয়ে সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে তাঁর সাথে ফুলেল শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

বাংলার অগ্নিকন্যা মতিয়া চৌধুরী’র সাথে অন্যান্য যেসকল ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানগন এপর্যন্ত সৌজন্য সাক্ষাত করেছেন তাঁর হলেন- গনপদ্দী ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. শামছুর রহমান (আবুল), নকলা ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. আবু বকর ছিদ্দিক (ফারুক), গৌড়দ্বার ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. শওকত হোসেন খান (মুকুল), চরঅষ্টধর ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও বর্তমান চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম রব্বানি, চন্দ্রকোনা ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. কামরুজ্জামান (গেন্দু)।

উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের মধ্যে ৪টিতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থীরা বেরসকারি ভাবে নির্বাচিত হয়ছেন। আর বাকি ৫টি ইউনিয়নের মধ্যে ৪টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সমর্থক এবং একটি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বিএনপি’র সমর্থক প্রার্থী বেরসকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

নির্বাচিতরা হলেন- ১ নং গনপদ্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান মো. শামছুর রহমান (আবুল) নৌকা প্রতীক নিয়ে ৬,৮১১ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আমীর হামজা মোটর সাইকেল প্রতীকে পেয়েছেন ৫,৫৬৯ ভোট।

২নং নকলা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আবু বকর ছিদ্দিক ফারুক মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে ৪,৩২৩ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান চেয়ারম্যান নৌকা প্রতীকে মো. আনিসুর রহমান সোজা পেয়েছেন ৪,০৫৬ ভোট।

৩নং উরফা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মুহাম্মদ নুরে আলম (ভূট্টো) চশমা প্রতীকে ৬,২১২ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম ও একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান চেয়ারম্যান মুহাম্মদ রেজাউল হক হীরা নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৬,০৮২ ভোট।

৪ নং গৌড়দ্বার ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান মো. শওকত হোসেন খান (মুকুল) নৌকা প্রতীক নিয়ে ২,৫২৫ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মোবারক হোসেন চশমা প্রতীকে পেয়েছেন ১,৯৯৫ ভোট।

৫নং বানেশ্বর্দী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মো. মাজহারুল আনোয়ার (মহব্বত) আনারস প্রতীক নিয়ে ৪,৮১৪ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী খন্দকার জাকির হোসেন (ফারুক) চশমা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২,৬১০ ভোট। আর নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আঞ্জুমান আরা বেগম (রুমী) ২,১৩০ ভোট পেয়ে তৃতীয় হয়েছেন। এ ইউনিয়নে কোন কেন্দ্রেই নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সর্বোচ্চ ভোট পায়নি!

৬নং পাঠাকাটা ইউনিয়নে মো. আব্দুস ছালাম নৌকা প্রতীক নিয়ে ৬,১৯১ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মোবারক হোসেন আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ২,৭৯৯ ভোট।

৭নং টালকী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোজাফফর মহিউদ্দিন (বুলবুল) ঘোড়া প্রতীক নিয়ে ৫,৪৮৭ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আনারস প্রতীক নিয়ে মো. ছায়েদুল হক পেয়েছেন ১,৭৩৪ ভোট। আর নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান বদরুজ্জামান ১,২৭৬ ভোট পেয়ে তৃতীয় হয়েছেন। এ ইউনিয়নেও কোন কেন্দ্রেই নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সর্বোচ্চ ভোট পায়নি!

৮নং চর অষ্টধর ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম রব্বানি নৌকা প্রতীক নিয়ে ৭,৮৫১ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম ও একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহজাহান আনারস প্রতীকে ৪,৮২৪ ভোট পেয়েছেন।

৯ নং চন্দ্রকোনা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. কামরুজ্জামান (গেন্দু) আনারস প্রতীক নিয়ে ৭,৮৫১ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম ও একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান চেয়ারম্যান মো. সাজু সাইদ ছিদ্দিকী নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৬,৪২৭ ভোট।

নিউজটি শেয়ার করুনঃ

এই জাতীয় আরো সংবাদ
©২০২০ সর্বস্তত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | সমকালীন বাংলা
Develop By : BDiTZone.com
themesba-lates1749691102
error: ভাই, খবর কপি না করে, নিজে লিখতে অভ্যাস করুন।