শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:০৭ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
নকলায় এক নারীর লাঠির আঘাতে পুরুষ খুন! আটক ২ নকলায় প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ উদ্বোধন ও প্রদর্শনী মেলা নকলায় বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদ’র উদ্যোগে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উদযাপন নকলায় বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উদযাপন নকলায় বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উদযাপন নকলায় অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে ঢেউটিন ও সহায়তার চেক বিতরণ নকলা ইউএনও’র বিরুদ্ধে তথ্য কমিশন কর্তৃক গৃহীত অযৌক্তিক সুপারিশের বিরুদ্ধে গণস্বাক্ষরসহ প্রতিবাদ নকলা পৌরসভার কলাপাড়া গ্রামের সার্বজনীন ইফতার আয়োজনকে অনুকরণ করার আহবান নকলার ৫৩১০ জন পেলেন সংসদ উপনেতা মতিয়া চৌধুরী’র ঈদ উপহার নকলায় কৃষকের মাঝে বিনামূল্যে সার বীজ বিতরণ উদ্বোধন

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ১৫০ কর্ম দিবসের জন্য বিষয় ভিত্তিক সিলেবাস আসছে

সমকালীন ডেস্ক:
  • প্রকাশের সময় | বুধবার, ৩ মার্চ, ২০২১
  • ১৬৩ বার পঠিত

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্ম দিবস কমিয়ে এনে বিষয় ভিত্তিক সিলেবাস প্রণয়নের কাজ প্রায় শেষের দিকে। ২০২১ শিক্ষাবর্ষ ৮ বা ৯ মাস হবে , এটি বিবেচনা করেই চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রণয়নের কাজ শুরু করা হয়। এ শিক্ষা বছরে ১৫০ কর্ম দিবসের সিলেবাস তৈরি করা হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, আসছে আগামী ৩০ মার্চ দেশের সব স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়া হতে পারে। এ বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, পুরো বছরের সিলেবাস ৮ বা ৯ মাসে শেষ করা যাবে না। তাই সব ক্লাসের সিলেবাস পরিমার্জন করা হবে। এজন্য এনসিটিবির একটি কমিটি কাজ করছে। পরিমার্জিত যে সিলেবাস প্রকাশ হবে তার ওপর ভিত্তি করেই পরীক্ষার প্রশ্ন হবে।

এনসিটিবির ঊর্ধ্বতন বিশেষজ্ঞ প্রফেসর সৈয়দ মাহফুজ আলী সংবাদমাধ্যমকে জানান, শিক্ষামন্ত্রীর নির্দেশনার পর এনসিটিবি সব শ্রেণির সংক্ষিপ্ত সিলেবাস তৈরি করেছে। চলতি শিক্ষাবর্ষের সিলেবাস ছোট করা হয়েছে।  অনুমোদন হওয়ার পর এটা প্রকাশ করা হবে। জানা গেছে, এনসিটিবি প্রণীত এ সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত কোনো তারিখ রাখা হয়নি। কত কর্ম দিবসে ক্লাস শেষ করা যাবে, সেভাবে সংক্ষিপ্ত সিলেবাস তৈরি করা হয়েছে।

কত শতাংশ সিলেবাস কমেছে তা স্পষ্ট না করলেও এনসিটিবির কর্মকর্তারা বলছেন, বিষয়ভিত্তিক সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রণয়ন করা হয়েছে। যেমন- সপ্তাহে বাংলা ক্লাস থাকে পাঁচ দিন। আবার গণিত ক্লাস থাকে তিন দিন। এভাবে সব মিলিয়ে ১৫০ কর্ম দিবসের সিলেবাস তৈরি করা হয়েছে।

এর আগে ২৭ ফেব্রুয়ারি মন্ত্রী বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার আগে শিক্ষক কর্মচারীদের টিকা দেয়ার কাজ শেষ করা হবে। পুরো রোজায় ক্লাস বন্ধ রাখার পরিকল্পনা নেই। শুধু ঈদের সময় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। মন্ত্রী আরও বলেন, ক্লাস ফাইভে সপ্তাহে ৫ দিন, এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে সপ্তাহে ৬ দিন এবং বাকিদের ক্ষেত্রে সপ্তাহে ১ দিন করে ক্লাস হবে।

এর আগে, গত ২২ ফেব্রুয়ারি অনলাইনে জরুরি সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বিশ্ববিদ্যালয় খোলার তারিখ ঘোষণা করেন। এদিন তিনি বলেন, দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান ২৪ মে থেকে শুরু হবে এবং হল খুলবে ১৭ মে। এর আগে সব ধরনের পাঠদান ও পরীক্ষা বন্ধ থাকবে। ১৭ মে এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব আবাসিক শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মচারীদের করোনা টিকা দেওয়া হবে। এছাড়া বিসিএস পরীক্ষার আবেদন ও পরীক্ষার তারিখ বিশ্ববিদ্যালয় খোলার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে নির্ধারণ করা হবে।

গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কয়েক ধাপে বাড়ানোর পর ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা হয়। গত ২২ জানুয়ারি করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে গাইডলাইন প্রকাশ করে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর। এ গাইডলাইন অনুসরণ করে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার প্রস্তুতি নিতে বলা হয়। স্কুল-কলেজগুলোতে ৩৯ পাতার গাইডলাইন পাঠিয়ে বলা হয়, ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে স্কুলগুলো প্রস্তুত করে রাখতে, যাতে যে কোনো মুহূর্তে সেগুলো খুলে দেয়া যেতে পারে।

নিউজটি শেয়ার করুনঃ

এই জাতীয় আরো সংবাদ
©২০২০ সর্বস্তত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | সমকালীন বাংলা
Develop By : BDiTZone.com
themesba-lates1749691102
error: ভাই, খবর কপি না করে, নিজে লিখতে অভ্যাস করুন।