সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ১০:৪৪ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
নকলায় বৈষম্যমূলক কোটা সংস্কার দাবিতে ও শিক্ষার্থীর ওপর বর্বর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন নকলায় উন্নয়ন সহায়তা কর্মসূচির টিউবওয়েল বিতরণ মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী শ্লোগানের প্রতিবাদে নকলায় মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন এবার শেরপুরকে ঘিরে তৈরি হচ্ছে ইত্যাদি অনুষ্ঠান : সকল কাজ প্রায় শেষ বিভাগীয় কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের বর্ষপূর্তি উপলক্ষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় নকলায় “মাদককে না বলুন” কর্মসূচি বাস্তবায়নে শপথ গ্রহণ নকলায় জঙ্গিবাদ ও মাদকাসক্তি প্রতিরোধে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান নকলায় শিশু ও নারী নির্যাতন বিরোধী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান নকলায় যুবদের হুইসেলব্লোয়ার হিসেবে অন্তর্ভূক্তিকরণ সভা নকলার ইউএনও শুদ্ধাচার পুরস্কার পাওয়ায় যুবফোরাম কর্তৃক সম্মাননা স্মারক প্রদান

নকলায় ভ্যালেইন্টাইন্স ডে উপলক্ষে ফুলের কদর বেড়েছে

নকলা (শেরপুর) প্রতিনিধি:
  • প্রকাশের সময় | রবিবার, ১৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ২৬১ বার পঠিত

শেরপুর জেলার নকলা উপজেলায় ভ্যালেইন্টাইন্স ডে (বিশ্ব ভালোবাসা দিবস) উপলক্ষে ফুলের কদর বেড়েছে। বিশেষ করে গোলাপ ফুলের কদর আকাশচুম্বী। নকলা পৌর শহরের মোড়ে মোড়ে বসেছে ফুলের দোকান। বেচা কেনাও চলছে হরদম।

সরজমিনে দেখা গেছে, ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে গ্রাম গঞ্জের হাট বাজার ও গুরুত্বপূর্ণ স্থান গুলোতেও ফুলের দোকান বসেছে। উঠতি বয়সের ছেলে মেয়েরা ফুল কিনতে ভিড় করছে এসব ফুলের দোকান গুলোতে। বিশেষ করে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীদের ফুলের দোকানে ভিড় সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। একেক জন একেক জনের উদ্দেশ্যে ফুল কিনছে। কেউ কিনছে বন্ধুদের জন্য, আবার কেউ কিনছেন বাবা, মা, ভাই বোনসহ আত্মীয় স্বজনদের উদ্দেশ্যে।

নার্সারি ব্যবসায়ী মোক্তার হোসেন, মৌসুমী ও শৌখিন ফুলের দোকানী তাফসির, মেহেদী, অনয়, জিসাম, কামরুল ও মমিনের সাথেকথা বলে জানা গেছে, তারা লাভের আশায় ফুলের দোকান দেয়নি। তাদের উদ্দেশ্যে হলো- কেউ যদি তার কাছে থেকে ফুল কিনে নিয়ে বাবা, মা, ভাই, বোন, আত্মীয় স্বজনদের বা মনের মিলের মানুষকে উপহার দিয়ে তাদের খুশি করতে পারেন, তাতে নাকি তারা শওয়াবের ভাগী হবেন। তাছাড়া লাভ তো কিছু অবশ্যই হবে। ওই লাভের টাকায় তারা নিজ নিজ বাবা-মাকে উপহার কিনে দিবেন বলে জানান।

শৌখিন ফুল বিক্রেতা তাফসির বলেন, এবছর তিনি দুই ধাপে ৭ হাজার টাকার ফুল কিনেছেন। এইসব ফুল বিক্রি শেষে অন্তত হাজার দুইয়েক টাকা লাভ হতে পারে বলে তিনি আশা করছেন। তিনি জানান, বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে ভালোবাসার নামে নষ্টামী ঠেকাতে বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন। বিশেষ করে যে বা যারা ফুল কিনতে আসছেন তাদের সকলকে নিজ নিজ বাবা-মায়ের জন্য ফুল কিনে নিতে পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন। আর যারা বাবা-মায়ের জন্য ফুল কিনতে আসছেন তাদের কাছে বিনালাভে ফুল বিক্রি করছেন।

ফুল বিক্রেতা মোক্তার হোসেন জানান, ফুল আল্লাহর সৃষ্টির সেরা উপহার। তাই বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে ফুলের দাম ও চাহিদা আকাশচুম্বী হয়ে যায়। এ উপলক্ষে উপজেলা বা ইউনিয়ন পর্যায়ের ফুল ক্রেতারা জেলা শহরের গিয়ে একদিকে বেশি দামে ফুল কিনে আনেন, অন্যদিকে যাতায়াত খরচতো আছেই; তাছাড়া দূর্ঘটনার সম্ভাবনা থেকেই যায়। তাই আমরা জেলা ও বিভাগীয় শহর থেকে ফুল কিনে এনে বিক্রি করি। এতে করে এলাকার টাকা এলাকাতেই থাকছে। লাভবান হচ্ছেন ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়েই।

ফুল ক্রেতারা জানান, এ দিনে ফুলের দাম এতটাই বেশি হয়, যা কল্পনাতীত। তবুও ভালোবাসা দিবসে বাবা, মা, ভাই, বোন, আত্মীয় স্বজনদের উপহার দেওয়ার জন্য ফুল নিতে এসছেন তারা। প্রতিটি গোলাপ ফুল ৩০ টাকা থেকে ৬০ টাকা করে, রজনীগন্ধা স্টীক ১৫ টাকা থেকে ২৫ টাকা করে বেচা-কেনা হচ্ছে। আর গোলাপ, রজনীগন্ধা ও ঘাস ফুল দিয়ে তোড়া বানিয়ে বিক্রি করা হচ্ছে ১০০ টাকা থেকে ৩৫০ টাকা করে। তবুও ক্রেতারা খুশি, কারন হাতের নাগালে সতেজ ফুল পাচ্ছেন তারা।

ইতালির রোম নগরীতে সেন্ট ভ্যালেইন্টাইন্স নামক একজন খ্রিষ্ট্রান পাদ্রী ও চিকিৎসক ছিলেন। ধর্ম প্রচারের অভিযোগে তৎকালীন রোম সম্রাট দ্বিতীয় ক্রাডিয়াস তাকে ২৬৯ সালে কারাবন্দি করেন। বন্দি অবস্থায় তিনি কারারক্ষীর দৃষ্টিহীন মেয়েকে চিকিৎসা সেবার মাধ্যমে সুস্থ করে তুলেন। এতে তার জনপ্রিয়তা বেড়েসেন্ট ভ্যালেইন্টাইন্স এর জনপ্রিয়তার প্রতি ঈর্ষান্বিত হয়ে রাজা তকে মৃত্যুদন্ড দেন। সেই দিনটি ছিল ১৪ ফেব্রুয়ারী। তার পর ৪৯৬ সালে পোপ জেলাসিয়াস জুলিয়াস সেন্ট ভ্যালেইন্টাইন্স স্মরনে ১৪ ফেব্রুয়ারীকে ভ্যালেইন্টাইন্স দিবস হিসেবে ঘোষণা করেন। এর পরথেকে ১৪ ফেব্রুয়ারী বিশ্বভালোবাসা দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। এ দিবসে সবাই ভালোবাসার মানুষটিকে কিছু না কিছু উপহার দিয়ে থাকেন।

নিউজটি শেয়ার করুনঃ

এই জাতীয় আরো সংবাদ
©২০২০ সর্বস্তত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | সমকালীন বাংলা
Develop By : BDiTZone.com
themesba-lates1749691102
error: ভাই, খবর কপি না করে, নিজে লিখতে অভ্যাস করুন।